স্বাস্থ্য

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিক ও তার প্রতিকার – লম্বা সময় বসে থাকলে কি হয় জেনে নিন

একটানা বসে থাকলে স্বাস্থ্যের উপর কোন ক্ষতি হতে পারে কি? বা দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে তার ক্ষতিকর দিক গুলো কি কি? তা যদি জানতে চান তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ুন।

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকা

কেউ কেউ অলসতার কারণে বসে থাকে। অনেকেই বাধ্য হয়ে বসে থাকে। কেননা কর্মজীবীরা তারা চাইলেও নিজের ইচ্ছামত কাজ করতে পারে না। যেই পেশা কাজ করে তাকে অনুযায়ী কাজ করতে হয় অনেকের বসে থেকে কাজ করতে হয়। কিন্তু এমন অনেক মানুষ আছে যারা দীর্ঘক্ষণ বসে থাকা একটি অভ্যাসে পরিণত করেছে।

অনেকেই অযথা ল্যাপটপ, মোবাইল একটানা বসে থেকে অনেক সময় ধরে ব্যবহার করে।সর্বশেষ দেখা যায় নিজের অজান্তেই বসে থাকার কারণে নানা ধরনের রোগের সম্মুখীন হয়। আজকের এই পোস্ট থেকে জেনে নিন দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার কারণে কি কি ক্ষতি হতে পারে।

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে কি হয়

আমরা অনেকেই আরাম প্রিয় মানুষ তার জন্য বসে থাকতে পছন্দ করি। কিন্তু এই বসে থাকার কারণে আমরা নিজের প্রতি কতটা ঝুঁকি নিচ্ছি তা অনেকেই জানিনা। দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিকগুলো জানলে আপনারা অনেকেই অবাক হবেন। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক দীর্ঘ দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে কি হয়।

<>দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার কারণে নানান ধরনের সমস্যা সম্মুখীন হতে হয়। এর ফলে শরীরে নানান ধরনের রোগ দেখা দিতে পারে যেমন:

<>কোমরে চর্বি জমা, ওজন বৃদ্ধি, ডায়াবেটিস, রক্তচাপ, হার্টের সমস্যা, রক্তে অতিরিক্ত কোলেস্টেরল, এর সাথে কোমর ও পেট ব্যথা ইত্যাদি

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে কি হয়

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিক

সাধারণত চেয়ারে বসে থাকার সময় আমরা সামনের দিকে ঝুঁকে থাকি। আমাদের কোমরের রেখা সমান বা সোজা নয়। মেরুদন্ড অনেক গুলো ছোট হাড়ের সমন্বয়ে তৈরি। এই হাড়গুলোর মাঝখানে রয়েছে নরম জেলির মতো ডিস্ক যা হাড়ের মধ্যে ঝাঁকুনি প্রতিহত করে ও পুরো মেরুদণ্ডকে ফ্লেক্সিবল করে।

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার কারণে মেরুদন্ডের ডিস্কগুলোতে চাপ পড়ে এবং মেরুদন্ডের আশেপাশের মাংসপেশিতে ও লিগামেন্টের উপর। ডিস্কগুলো যেহেতু নরম, তারা এই অস্বাভাবিক চাপের দরুন আস্তে আস্তে স্ফিত হয়ে মেরুদণ্ডের ভেতর থেকে শরীরের বিভিন্ন নার্ভের ওপর চাপ দেয়। চাপ যত বেশি হবে ব্যথা তত বৃদ্ধি পাবে।

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিক

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিক ও তার প্রতিকার

দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিকগুলো কি কি? এটা উপরে আলোচনা করা হয়েছে। এখন আলোচনা করব কিভাবে প্রতিকার করবেন চলুন জেনে নেয়া যাক। কাজের ফাঁকে যতটুকু সময় পান এই সময়ের মধ্যে কিছু অভ্যাস তৈরি করুন। তাহলে ক্ষতিকর দিকগুলো থেকে কিছুটা হলেও রক্ষা পাবেন।

<>দীর্ঘ সময় যারা চেয়ারে বসে কাজ করেন। তারা কাজের ফাঁকে যেমন এক থেকে দেড় ঘন্টা পর। উঠে কিছুটা হাঁটাচলা করুন এবং সোজা হয়ে বসে কাজ করার চেষ্টা করুন।

<>যদি কর্মস্থলে যাওয়ার জন্য সিঁড়ি বা লিফট থাকে। তাহলে অবশ্যই সিঁড়ি দিয়ে উঠা ও নামার চেষ্টা করুন।

<>প্রতিদিন ব্যায়াম করার অভ্যাস করুন এবং চেয়ারে বসে থাকা অবস্থায় ছোটখাটো ব্যায়াম করা যায়। কাজের ফাঁকে ব্যায়ামগুলো করার চেষ্টা করুন।

<>প্রতিদিন সময় করে আধাঘন্টা বা তারও বেশি হাঁটাচলা করার চেষ্টা করুন। একাধিক কেস স্ট্যাডি করে দেখা গেছে কেউ যদি দিনে মোট দশ ঘণ্টা বসে থাকেন। এর ফলে যা ক্ষতি হয় সেই ক্ষতিপূরণ করার জন্য প্রতিদিন এক ঘন্টা বা তারও বেশি সময় শরীর চর্চা করেন তবুও ক্ষতিপূরণ হয় না। তাই টানা বসে না থেকে কাজের ফাঁকে এক ঘন্টা পর পর উঠে কিছুটা সময় হাঁটাচলা করুন।

<>বেশিদিন কর্মক্ষম থাকতে হলে আমাদের অবশ্যই সামনে ঝুঁকে বসে কাজ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। সব সময় কোমরের স্বাভাবিক বক্রতা বজায় রেখে বসতে হবে।

<>এছাড়া যারা কোমর ব্যথায় ভুগছেন তারা সামনের দিকে ঝুঁকে বসবেন না। পারলে সোজা হয়ে বসুন ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে উঠতে পারবেন।

শেষ কথা

আমরা চেষ্টা করেছি দীর্ঘক্ষণ বসে থাকার ক্ষতিকর দিকগুলো এবং তার প্রতিকার তুলে ধরার। আশা করি আজকের এই পোস্ট থেকে আপনি খুব সহজে জানতে পেরেছেন কিভাবে প্রতিকার করতে হয়। আজকের এই পোস্ট যদি আপনাদের কাছে ভালো লেগে থাকে‌। তাহলে অবশ্যই আপনাদের বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে পারেন।

আরও দেখুনঃ 

মধু খাওয়ার নিয়ম, উপকারিতা ও অপকারিতা

আদার উপকারিতা ও অপকারিতা – দেখুন আদা খাওয়ার নিয়ম

কলার উপকারিতা ও অপকারিতা – দেখুন বিস্তারিত

লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা

ওজন কমানোর উপায় – জানুন বিস্তারিত

মধু খাওয়ার নিয়ম, উপকারিতা ও অপকারিতা

খুশকি দূর করার উপায় – দেখুন বিস্তারিত

দুধের উপকারিতা ও অপকারিতা – দেখুন বিস্তারিত

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button