উক্তিকবিতাস্ট্যাটাস

নারীর সম্মান নিয়ে উক্তি, ইসলামিক স্ট্যাটাস, কবিতা ও কিছু কথা

নারীদের সম্মান নিয়ে, নারীদের জীবন নিয়ে, নারীদের চলাফেরা ও তাদের আত্মমর্যাদা সহ আরো অনেক বিষয় নিয়ে। তাদের সম্মানের উদ্দেশ্য বিশ্ব বিখ্যাত মনীষীরা নানান ধরনের উক্তি বলেছেন। অনেকেই আছে নারীদের সম্মান জানানোর জন্য ফেসবুক সহ আরো অনেক সোসিয়াল প্লাটফর্মে স্ট্যাটাস দিয়ে থাকেন। এর মাঝে অনেকেই গুছিয়ে লিখতে পারে আবার অনেকে পারেনা। তাই যারা বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে নারীদের সম্মান জানানোর জন্য স্ট্যাটাস দিতে চান। আজকের এই পোস্টে বিখ্যাত মনীষীদের উক্তি গুলো পেয়ে যাবেন।

মানুষ সর্বশ্রেষ্ঠ প্রাণী, আল্লাহতালা প্রাণী সহ আরো কিছুই সৃষ্টি করেছেন। পৃথিবীতে আল্লাহ তাআলা অনেক কিছু সৃষ্টি করেছেন কিন্তু সবচেয়ে মানুষদেরক সর্বশ্রেষ্ঠ প্রাণী করে সৃষ্টি করেছেন। মানুষদের মাঝে সম্মান দিয়েছেন, ভালো মন্দ বোঝার তৌফিক দিয়েছেন। এই পৃথিবীতে যেমন-পুরুষের সম্মানের সাথে বাঁচার অধিকার আছে, তিনি নারীদের সম্মান এর সাথে বাঁচার অধিকার আছে।

একজন নারী তার জীবনে সব সময় পরিবারের পুরুষদের সাথে সকলের দায়িত্ব নিয়ে থাকেন। কোন বাধা আসলে তার মুখোমুখি হয়ে দাঁড়ায়। সকলেরই খেয়াল রেখে থাকেন। তাই নারীদের কে সম্মান করতে হবে তাদেরকে অবহেলা অবজ্ঞা করা যাবে না। নারী জাতি বিশ্বের জন্য কল্যাণকর

নারীর সম্মান নিয়ে উক্তি

আপনারা যারা নারীদের নিয়ে বিশ্ব বিখ্যাত মনীষীদের উক্তি খোঁজ করছেন। তারা আজকের এই পোস্টে মনীষীদের বাছাই করা উক্তি পেয়ে যাবেন । অনেকে চায় নারীকে সম্মান করার উদ্দেশ্যে কিছু ভালো উক্তি সংগ্রহ করে নিয়ে। নারীদেরকে পড়ে শোনাতে বা ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে চাই। তাই আজকের এই পোস্টে বাছাই করা কিছু উক্তি তুলে ধরা হয়েছে।

১। আমি যদি আত্মরক্ষার জন্য ক্যারাটে শিখি তাহলে তোমাকেও সহবত শিখতে হবে।.২.আঠেরোয় পা দিলেই বিয়ের চিন্তা না করে বাবা মায়ের উচিত মেয়েদের যোগ্য করে তোলা।

২। তোমার শরীর নয়, যেদিন সবাই তোমার মন বুঝবে সেদিনই হবে যথার্থ নারী দিবস।.৩বিকশিত হোক তোমার মন।

৩। নারী দিবস একদিনে পালন করা যায় না। সেটা সম্ভব নয়। কারণ সমুদ্রের জল একটা গ্লাসে রাখা যায়না।

৪। আগে নিজের বাড়িতে নিজের মা ও বোনকে একজন মানুষ হওয়ার সম্মান দিন। তারপর বাইরে বেরিয়ে বাকি মেয়েদের দিকে তাঁকাবেন।

৫।  আমরা জানি ম্যাজিক। সেটার সন্ধান চাইলে আমাদের সম্মান দিতে হবে।

৬। আজকের দিনে কারও পক্ষে বলা সম্ভব নয় যে আমরা নারীরা পুরুষদের থেকে পিছিয়ে আছি, সব ক্ষেত্রে আমরা পুরুষদের টক্কর দেওয়ার ক্ষমতা রাখি। তাই আপামর নারীজাতিকে আমি জানাতে চাই যে নিজেকে কখনো দুর্বল ভেবো না, কারণ তুমি নারী শক্তির অংশ।

৭। আমরা কন্যাসন্তান হিসাবে মিষ্টি, আমরা বোন হিসাবে যত্নবান, আমরা প্রেমিকা হিসাবে সুন্দরী, আমরা স্ত্রী হিসাবে প্রিয়তমা, আমরা মা হিসাবে পরম মমতাময়ী, আমরা শক্তির আধার, আমরা নারী!

নারী নিয়ে উক্তি

৮। জীবন যদি রামধনু হয়, তবে তুমি হলে তার রঙের বাহার, জীবনে যদি নাম আঁধার, তুমি হয়ে ওঠো তার আশার আলো। আন্তর্জাতিক মহিলা দিবস এর অনেক অনেক শুভেচ্ছা।

নারী নিয়ে স্ট্যাটাস

বর্তমান সময়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম ফেসবুক এই ফেসবুকে নানান জনে নানান ধরনের পোস্ট করে থাকে। কিন্তু এর মাঝে অনেকেই নারীদের সম্মান জানানোর উদ্দেশ্যে নারী নিয়ে স্ট্যাটাস খোঁজ করে থাকে। তাই যারা নারী নিয়ে বাছাই করা স্ট্যাটাস খোঁজ করছে‌। তাদের জন্য আজকের এই পোস্টে বাছাই করা কিছু স্ট্যাটাস তুলে ধরেছি। এগুলো সংগ্রহ করে আপনি আপনার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে পারবেন।

প্রতিটা মেয়ে হয়ত তার স্বামীর কাছে রানী হয়ে থাকতে পারে না। কিন্তু প্রতিটা মেয়েই তার বাবার কাছে রাজকন্যা হয়ে থাকে – হুমায়ূন আহমেদ

মেয়েরা ব্যাক্তিগত চাহিদার কাছে কখনো পরাজিত হয় না – হুমায়ূন আহমেদ

যে নারীকে ঘুমন্ত অবস্থায় সুন্দর দেখায় সেই প্রকৃত রূপবতী – হুমায়ূন আহমেদ

বিশ্বের নারী নেতারা নারীদের প্রতিনিধি নয়; তারা সবাই রুগ্ন পিতৃতন্ত্রের প্রিয় সেবাদাসী – হুমায়ূন আজাদ

এরশাদের প্রধান অপরাধ পরিবেশদূষন: অন্যান্য সরকারগুলো পুরুষদের দূষিত করেছে, এরশাদ দূষিত করেছে নারীদেরও – হুমায়ূন আজাদ

নারীদের সম্মান নিয়ে ইসলামিক উক্তি

পৃথিবী জুড়ে প্রতিটি নরনারী এখন মনে করে তাদের জীবন ব্যর্থ; কেননা তারা অভিনেতা বা অভিনেত্রী হতে পারেনি – হুমায়ূন আজাদ

অধিকাংশ রূপসীর হাসির শোভা মাংসপেশির কৃতিত্ব, হৃদয়ের কৃতিত্ব নয় – হুমায়ূন আজাদ

মেয়েরা যখন শক্তিরূপা হয়ে ওঠে তখন পৃথিবীতে অনেক বড় পরিবর্তন আসে।

আমি বলতে চাইনা যে সামনের জন্মে আমি মেয়ে হতে চাইনা। বরং এটাই বলতে চাই যে যতবার জন্মাই যেন মেয়ে হয়ে জন্মাই।

নারী নিয়ে স্ট্যাটাস

নারীবাদী হওয়া মানে মেয়েদের শক্তিশালী করা নয়, তাঁরা এমনিতেই শক্তিশালী।

মেয়েদের শুধু অন্যের ভালো স্ত্রী হয়ে ওঠা শেখালে চলবে না। তাঁদেরকে সবার আগে যোগ্য করে তুলতে হবে।

মেয়েদের সম্মান নিয়ে উক্তি

পুরুষদের যেমন স্বাধীনভাবে বাঁচার অধিকার আছে, তেমনি নারীদের স্বাধীনভাবে বাঁচার অধিকার আছে। কিন্তু বর্তমান সময়ে নারীরা পুরুষদের মত চলাফেরা করার চেষ্টা করে। নারীরা পুরুষদের পোশাক পরে রাস্তাঘাটে বের হয় ও বেপর্দায় বের হয়। স্বাধীনভাবে বাঁচা মানে এই নয় যে অশালীন পোশাক পরে রাস্তাঘাটে বের হওয়া যাবে।

স্বাধীনভাবে বাঁচার মানে নিজের সম্মান রক্ষা করা, নিজের আত্ম মর্যাদা রক্ষা করা। তাই নিজের সম্মান রক্ষা করার জন্য প্রয়োজন হয় পর্দা‌। একজন নারী যখন পর্দাশীল হয়ে রাস্তায় বের হয়। তখন অনেক বখাটে ছেলেরাও সম্মান জানায়। নারীদের পর্দা করাও ইবাদত, এই ইবাদত থেকে বঞ্চিত হলে ইহকাল ও পরকাল উভয় জায়গায় ক্ষতিগ্রস্ত হতে হবে।

নারীর মর্যাদা নিয়ে উক্তি

তাই এমন কাজ করা যাবে না যে কাজে নিজের সম্মানহানি হয়। তাই নিজের সম্মান ধরে রাখার জন্য অবশ্যই ইসলামের বিধান মেনে নিজেকে পর্দায় রাখতে হবে। আর নিজেকে পর্দা রাখাই হচ্ছে আসল স্বাধীনতা। এই স্বাধীনতা থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করা নিজের জন্যই ক্ষতি। আশা করি এই আর্টিকেল অনেক নারীরাই পড়েছেন। তাই তাদের উদ্দেশ্যে বলবো ছেলে দের মতন করে চলাফেরা করা উত্তম কাজ নয়। নিজেকে পর্দা রাখুন এটা যেমন নিজের যার জন্য ভালো তেমনি সমাজের জন্য ভালো।

নারী নিয়ে উক্তি

তারা তাদের সৌন্দর্য প্রকাশ করবে না। তারা যেন তাদের সাজ-সজ্জা প্রকাশের উদ্দেশ্যে সজোরে পদক্ষেপ না করে।
– আল- কুরআন

আর আপনি ঈমানদার নারীদেরকে বলুন, তারা যেন তাদের দৃষ্টি সংযত করে ও লজ্জাস্থান হেফাজত করে এবং যা প্রকাশ পায় তা ছাড়া তাদের (অন্যান্য) আভরণ প্রকাশ না করে, তাদের গ্রীবা ও বক্ষদেশ যেন কাপড় (চাদর বা ওড়না) দ্বারা আবৃত করে।
– আল- কুরআন

হে পুরুষগণ! তোমরা নারীদের হতে কিছু চাইলে পর্দার অন্তরাল হতে চাইবে। এ বিধান তোমাদের এবং তাদের হৃদয়ের জন্য অধিকতর পবিত্র।
– আল- কুরআন

নারীর বেশ ধারী পুরুষের উপর অভিশাপ এবং পুরুষের বেশ ধারীণী নারীর উপর আল্লাহর অভিশাপ।
– হযরত মুহম্মদ (স)

পর্দাশীল নারী নিয়ে কিছু কথা

আর তাই তাদের বক্ষদেশে পর্দা টানা উচিত।
– আল-কুরআন

যে নারী স্বগৃহ, স্বামীগৃহ, মায়ের বাড়ি ছাড়া অন্য কোনো স্থানে পর্দা রাখে না সে তার ও তার রবের মধ্যকার পর্দা ও লজ্জাশীলতাকে বিদীর্ণ করে দেয়।
– হযরত মুহম্মদ (স)

নারী নিয়ে ইসলামিক উক্তি

অনেকেই নারী নিয়ে ইসলামিক বাণী খোঁজ করে থাকে। কেননা ইসলামিক বাণী পরে জীবনে অনেক কিছু শিক্ষা নিয়ে যায় এবং জীবনে ভালো কিছু করা যায়। তাই আমরা কিছু আপনাদের জন্য নারী নিয়ে ইসলামিক বাণী তুলে ধরেছি আজকের এই পোস্টে। আশা করি ইসলামিক বাণী গুলো আপনারা সংগ্রহ করে নিবেন।

চরিত্রহীনা নারী চরিত্রহীন পুরুষের জন্য, আর চরিত্রহীন পুরুষ চরিত্রহীনা নারীর জন্য। সৎ চরিত্রবতী নারী সৎ চরিত্রবান পুরুষের জন্য, আর সৎ চরিত্রবান পুরুষ সৎ চরিত্রবতী নারীর জন্য। – আল কুরআন

স্ত্রীলোকদের ব্যাপারে তোমরা কল্যাণের উপদেশ গ্রহণ কর। কেননা তাদেরকে তৈরীই করা হয়েছে পাঁজরের হাড় থেকে, আর পাজরের যা সবচেয়ে বক্র তা উপরের অংশে থাকে। তুমি যদি তা সোজা করতে যাও তবে তা ভেঙ্গে যাবে। আর যদি এমনি ছেড়ে দাও তবে তা চিরদিন বক্রই থেকে যাবে। অতএব, তাদের ব্যাপারে কল্যাণের অসিয়ত গ্রহণ কর। – আল হাদিস

যে গর্ভ তোমাকে ধারন করেছে সে গর্ভধারিণী মায়ের প্রতি কর্তব্য কর ও শ্রদ্ধা নিবেদন কর – আল কুরআন

রাসূলুল্লাহ (সা.) আরো ইরশাদ করেন, ‘যার গৃহে কন্যা সন্তান জন্ম গ্রহন করল, অতঃপর সে তাকে (কন্যাকে) কষ্টও দেয়নি, তার ওপর অসন্তুষ্ট ও হয়নি এবং পুত্র সন্তানকে প্রাধান্য দেয়নি, তাহলে ওই কন্যার কারণে মহান আল্লাহ তায়ালা তাকে বেহেশতে প্রবেশ করাবেন।’ (মুসনাদে আহমদ, ১:২২৩)

যে ব্যক্তির তিনটি কন্যা সন্তান বা তিনজন বোন আছে অথবা দু’জন কন্যা সন্তান বা বোন আছে। সে তাদের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেছে এবং তাদের ব্যাপারে আল্লাহ তায়ালাকে ভয় করেছে। তার জন্য রয়েছে জান্নাত।

(জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৬)

যে ব্যক্তিকে কন্যা সন্তান লালন-পালনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এবং সে ধৈর্যের সঙ্গে তা সম্পাদন করেছে সেই কন্যা সন্তান তার জন্য জাহান্নাম থেকে আড়াল হবে। (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৩)

যে ব্যক্তি দুইজন কন্যা সন্তানকে লালনপালন ও দেখাশুনা করল (বিয়ের সময় হলে ভালো পাত্রের কাছে বিবাহ দিল) সে এবং আমি জান্নাতে এরূপ একসঙ্গে প্রবেশ করব যেরূপ এ দুটি আঙুল। তিনি নিজের দুই আঙুল মিলিয়ে দেখালেন। (জামে তিরমিযী, হাদীস ১৯১৪)…

নারীর সম্মান নিয়ে কবিতা

আপনি যদি নারী নিয়ে কবিতা খোঁজ করে থাকেন তাহলে আজকের এই পোস্ট আপনার জন্য। আজকের পোষ্টে আপনাদের জন্য নারী নিয়ে কিছু কবিতা তুলে ধরেছি। আশা করি কবিতাগুলো আপনাদের কাছে ভালো লাগবে। নারী নিয়ে কবিতা দেওয়া হয়েছে।

নারী নিয়ে ইসলামিক কবিতা

নারী

কাজী নজরুল ইসলাম

হায় ফিরদৌসের ফুল!
ফুটিতে আসিলে ধূলির ধরায় কেন?
সে কি মায়া? সে কি ভুল? কোন আনন্দধামে জড়াইয়া ছিলে কোন একাকীর বামে?
তাঁহারই জ্যোতির্মণিকা-কণিকা এসেছে প্রকৃতি হয়ে
সপ্ত আকাশ রসে ডুবাইয়া প্রেম ও মাধুরী লয়ে।

পরম জ্যোতির্দীপ্তিরে নাহি ডরিলে
পরম রুদ্রে প্রেম-চন্দন মাখায়ে স্নিগ্ধ করিলে!
শুভ্র জ্যোতির্পুঞ্জ-ঘন অরূপে
গলাইলে তুমি ময়ূরকন্ঠী নবীন নীরদ রূপে!
নীল মেঘে হলে শক্তি বিজলি-লেখা
শূন্যবিহারী একাকী পুরুষে রহিতে দিলে না একা।

স্রষ্টা হইল প্রিয়-সুন্দর সৃষ্টিরে প্রিয়া বলি
কল্পতরুতে ফুটিল প্রথম নারী আনন্দকলি!
নিজ ফুলশরে যেদিন পুরুষ বিঁধিল আপন হিয়া,
ফুটিল সেদিন শূন্য আকাশে আদিবাণী – ‘প্রিয়া, প্রিয়া!’
আকাশ ছাইল অনন্তদল শতদলে আর প্রেমে,
শান্ত মৌনী এল যৌবন-চঞ্চল হয়ে নেমে।

কে দেখিত সেই পরম শূন্য, অসীম পাষাণ-শিলা,
সীমায় যদি না বাঁধিতে তাহারে না দেখাতে রূপ-লীলা!
কোন সে গোপন পরমাশ্রী প্রকৃতি লুকায়ে ছিলে?
ভুবনে ভুবনে ভবন রচিয়া রস-দীপ জ্বালাইলে!
অনন্তশ্রী ঝরে পড়ে নিতি অনন্ত দিকে তব,
তুমি এলে, তাই সম্ভাবনায় আসিল অসম্ভব!

হে পবিত্রা চির-কল্যাণী, কে বলে তোমায় মায়া ?
এই সুন্দর রবি শশী তারা
গিরি প্রান্তর নদীজলধারা
অসীম আকাশ সাগর ধরিতে পারে না তোমার কায়া,
তব রূপে দেখি না-দেখা পরম সুন্দরের যে ছায়া, –
কে বলে তোমায় মায়া?

তুমি তাঁর তেজ, তব তেজে জ্বলে আমার এই জীবন,
সূর্যের মতো চাঁদসম আকাশের কোলে অনুখন।
মাতা হয়ে তুমি দিয়াছ এ মুখে প্রথম-স্তন্যরস,
স্নেহ-অঞ্চলে বাঁধিয়া এ ঘর ছাড়ায়ে করেছ বশ।
যখনই পালাতে চাহিয়াছি বনে, কে তুমি অশ্রুমতী,

কাঁদিয়াছ মোর হৃদয়ে বসিয়া, রোধ করিয়াছ গতি?
সুন্দর প্রকৃতিরে হেরি মোর তৃষ্ণা জাগিল প্রাণে,
এত সুন্দর সৃষ্টি করে যে, সে থাকে সে-কোনখানে।
আমার পূর্ণ সুন্দরের যে পথের দিশারি তুমি,
তুমি ছায়া হয়ে সাথে চল যবে পার হই মরুভূমি?
যতবার নিভে যায় আশা-দীপ, ততবার তুমি জ্বাল,
শূন্য আঁধারে সম্মুখে জ্বলে তোমার আঁধারি-আলো!

অনন্তধারা প্রেমের ঝরনা কোথা লুকাইয়া ছিলে?
উদাসীন গিরি-পাষাণের হিয়া রসে ভাসাইয়া দিলে!
পাথরের বিগ্রহ হয়েছিল নিস্তেজ আদি-নর,
তেজোময়ী আদি-নারী সে পাষাণে কাঁপাইলে থরথর।
নিষ্কাম ঘন অরণ্যে সেই প্রথম কামনা-জুঁই

আঁখি মেলি যেন দেখিল সৃষ্টি, হেসে এক হল দুই!
এই দুই হয়ে দ্বন্দ্ব আসিল, ছন্দ জাগিল পায়,
সোনাতে কাঁকরে দুজনে মিলিয়া নূপুর বাজায়ে যায়!
সালাম লহো গো প্রণাম লহো গো প্রকৃতি পুণ্যবতী,
তব প্রেম দেখায়েছে গো চির আনন্দধামের জ্যোতি!

প্রেমের প্রবাহ লইয়া যখন আস হয়ে উপনদী –
মরুতে মরে না নরের তৃষ্ণানদী –
সাগরের পানে ছুটে চলে নিরবধি!
পুরুষের জ্ঞান রসায়িত হয় প্রকৃতির প্রেমরসে,
তরবারি ধরে উদাসীন নর রণক্ষেত্রে পশে!
যে দেশে নারীরা বন্দিনী, আদরের নন্দিনী নয়,
সে দেশে পুরুষ ভীরু কাপুরুষ জড় অচেতন রয়!
অভিশপ্ত সে দেশ পরাধীন, শৌর্য-শক্তিহীন,

শোধ করেনি যে দেশ কল্যাণী সেবিকা নারীর ঋণ!
নারী অমৃতময়ী, নারী কৃপা – করুণাময়ের দান,
কল্যাণ কৃপা পায় না, যে করে নারীর অসম্মান!
বেহেশ্‌ত’ স্বর্গ শুকাইয়া যায় প্রকৃতি না থাকে যদি,
জ্বলে না আগুন, আসে না ফাগুন, বহে না বায়ু ও নদী!
আজও রবি শশী ওঠে ফুল ফোটে নারীদের কল্যাণে,

নামে সখ্য ও সাম্য শান্তি নারীর প্রেমের টানে।
নারী আজও পথে চলে
তাই ধূলিপথ হয় বিধৌত শুদ্ধ মেঘের জলে!
নারীর পুণ্য প্রেম আনন্দ রূপ রস সৌরভ
আজও সুন্দর করিয়া রেখেছে বিধাতার গৌরব!

শেষ কথা

আজকের এ পোস্টটি আপনাদের মাঝে তুলে ধরেছে নারী নিয়ে উক্তি, নারী নিয়ে স্ট্যাটাস, পর্দাশীল নারী নিয়ে কিছু কথা, নারী নিয়ে ইসলামিক বাণী, নারী নিয়ে কবিতা। আশা করি আজকের এই পোস্টটি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে। যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন

আরও দেখুন

নারী দিবস নিয়ে উক্তি, স্ট্যাটাস, ক্যাপশন, পোস্ট ও কিছু কথা

নারী দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা, কবিতা ও রচনা

নারী দিবসের কবিতা ও নারী নিয়ে কবিতা

সম্মান নিয়ে উক্তি ও স্ট্যাটাস

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button