ক্যালেন্ডারস্বাধীনতা দিবস

২৬ মার্চ কি দিবস ২০২২, কেন পালন করা হয়, ইতিহাস ও কিছু কথা

বাংলাদেশে প্রতিবছর ২৬ শে মার্চ হিসেবে একটি দিবস পালিত হয়। কিন্তু বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষ জানে না 26 শে মার্চ কি দিবস। তাই বর্তমান প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে অনেকে গুগলে অনুসন্ধান করে 26 শে মার্চ কি দিবস। ২৬ শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস ও বাংলাদেশের জাতীয় দিবস। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের দিকে খেয়াল করলে দেখা যায় ১৯৭১ সালের 25 শে মার্চ রাতে ওই সময়ের পূর্ব পাকিস্তানের জনগণ নিজেদের স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু করে। ১৯৭১ সালের 27 শে মার্চ জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পক্ষে চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশের জনসাধারণের উদ্দেশে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণের ডাক দেন।

২৬ মার্চ কি দিবস

আপনাদের সবার অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে ১৯৭২ সালের ২২ জানুয়ারি প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপনে এই দিনটিকে বাংলাদেশের জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপন করার ঘোষণা করা হয়। যা সরকারিভাবে ছুটি ঘোষণার দিন হিসেবে নির্ধারিত করা হয়। ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পতাকা উত্তোলন এর পুরস্কার অনুষ্ঠান দেশাত্মবোধক গান এবং জাতীয় সংগীত গাওয়া রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা বিনোদন ও সাংস্কৃতিক কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়।

1971 সালের 25 শে মার্চ পশ্চিম পাকিস্তানের সরকার গভীর রাতে পূর্ব পাকিস্তান তথা বাংলাদেশের নিরীহ মানুষের ওপর হামলা চালায়। ঐদিন ঢাকার বিভিন্ন স্থানে গোলাবর্ষণ থেকে শুরু করে নারীদের ওপর পাশবিক নির্যাতন করা হয়। অন্যদিকে অনেক স্থানে পরিকল্পিতভাবে হত্যাকাণ্ড চালানো হয়। পরবর্তীতে বাংলাদেশের মানুষের দেয়ালে পিঠ থেকে যাওয়ায় তারা যুদ্ধের প্রস্তুতি ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর পূর্ব পাকিস্তান স্বাধীন বাংলাদেশ হিসেবে স্বীকৃতি পায়।

২৬ শে মার্চ কি দিবস ২০২২

১৯৭১ সালে দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করার পর বাঙালি পশ্চিম পাকিস্তানের হাত থেকে রক্ষা পেয়ে স্বাধীন দেশ হিসেবে যাত্রা শুরু করে। ২৬ শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস। এই দিনে পুরো বাংলাদেশের সরকারি ছুটি ঘোষণা করা থাকে। ও বিভিন্ন রকম কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়।

২৬ মার্চ কেন পালন করা হয়

২৬ শে মার্চ বা স্বাধীনতা দিবস কেন পালন করা হয় অনেকেই জানতে চেয়েছেন। ২০২২ সালে বাংলাদেশের ৫১ তম স্বাধীনতা দিবস পালন করা হবে। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মানুষ পশ্চিম পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত হন। দীর্ঘ নয় মাস যুদ্ধ করার পর বাংলাদেশের মানুষ মুক্তিযুদ্ধে বিজয় লাভ করে।

২৬ মার্চ sadhinota dibosh

পরবর্তীতে পাকিস্তান ও বাংলাদেশের মাঝে এক সর্বশেষ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় যেখানে বাংলাদেশকে স্বাধীন ঘোষণা করা হয়। ২৬ মার্চ থেকে বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। যার ফলে এই দিনটি বাংলাদেশের জন্য স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস প্রতিবছর ২৬ শে মার্চ পালন করা হয়ে থাকে। 

২৬ শে মার্চের ইতিহাস

আমরা অনেকেই জানি অপারেশন সার্চলাইট নামে একটি বিষয় রয়েছে। পশ্চিম পাকিস্তান ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ রাতে পূর্ব পাকিস্তান তথা সাধারণ মানুষের ওপর নির্মম হত্যাকাণ্ড চালায়। সেই গভীর রাতে ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় গোলাবর্ষণ সহ নারীদের ওপর নির্যাতন করে পাকিস্তান হানাদার বাহিনী।

স্বাধীনতা দিবসের ফটো

যার ফলে সেই রাত্রিকে অপারেশন সার্চলাইট বলা হয়ে থাকে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের 25 শে মার্চ মধ্যরাতে হানাদার বাহিনীর কাছে গ্রেপ্তার হন। গ্রেফতার হবার কিছুক্ষণ আগে তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র স্বাক্ষর করেন। সেখানে ঘোষণাটি লেখা থাকে:

এটা হয়তো আমার শেষ বার্তা, আজ থেকে বাংলাদেশ স্বাধীন। আমি বাংলাদেশের মানুষকে আহ্বান জানাই, আপনারা যেখানেই থাকুন, আপনাদের সর্বস্ব দিয়ে দখলদার সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে শেষ পর্যন্ত প্রতিরোধ চালিয়ে যান। বাংলাদেশের মাটি থেকে সর্বশেষ পাকিস্তানি সৈন্যটিকে উত্খাত করা এবং চূড়ান্ত বিজয় অর্জনের আগ পর্যন্ত আপনাদের যুদ্ধ অব্যাহত থাকুক।

পরবর্তীতে দীর্ঘ নয় মাস বাংলাদেশের মানুষ তাদের জান-প্রাণ দিয়ে পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধ করে। 1971 সালের সেই যুদ্ধে বাংলাদেশের প্রায় ত্রিশ লক্ষ মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। যার ফলে বাংলাদেশে পেয়ে যায় একটি স্বাধীন দেশ।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস

২৬ মার্চ কি অনেকে জানেন না। তাদের সবাইকে জানানোর জন্য আজকের এই পোস্টে আমরা তুলে ধরেছি 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস। এই দিনটিকে ঘিরে রয়েছে বিশেষ ইতিহাস। আজকের পোষ্টে আমরা তুলে ধরেছি 26 শে মার্চ এর সঠিক ঘটনা। পুরো বাংলাদেশে ২০২২ সালে পালিত হবে স্বাধীনতা দিবস ২৬ শে মার্চ। তাই সবাইকে শেয়ার করে জানিয়ে দিন 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস।

স্বাধীনতা দিবসের ছবি

স্বাধীনতা দিবস কবে?

অনেকেই আছেন যারা জানেননা 26 শে মার্চ বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। তাদের সুবিধার্থে তুলে ধরা হয়েছে ২০২২ সালের মহান স্বাধীনতা দিবস পালন করা হবে ২৬ শে মার্চ রোজ শনিবার, বাংলা চৈত্র মাসের ১২ তারিখ। এবছর বাংলাদেশের ৫১ তম স্বাধীনতা দিবস পালন করা হবে। তাই আমাদের ওয়েবসাইট থেকে স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস সংগ্রহ করে নিতে পারেন।

২৬ শে মার্চ নিয়ে কিছু কথা

বাংলার মানুষ বীরের মতো ঝাঁপিয়ে পড়েছিল পাকিস্তান হানাদার বাহিনীর উপর। দীর্ঘ নয় মাস পুরো বাংলাদেশের মানুষ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়ে গিয়েছে। যার জন্য আজ আমরা এই বাংলার মানুষ স্বাধীন দেশ পেয়েছি স্বাধীন ভাষা পেয়েছি। তাই আজকের এই স্বাধীনতা দিবসে সকল মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা। ১৯৭১ সালের 25 শে মার্চ পাকিস্তান হানাদার বাহিনী ঢাকায় অপারেশন সার্চলাইট চালায়। যার ফলে অসংখ্য পুরুষ ও নারী মারা যায়। আজ বাংলাদেশের ৫১ তম স্বাধীনতা দিবস। ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের 50 বছর উপলক্ষে সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠান পালন করা হয়।

২৬ শে মার্চ ২০২২ কত তম স্বাধীনতা দিবস?

২০২২ সালে বাংলাদেশের ৫১ তম স্বাধীনতা দিবস পালন করা হবে।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস ঘোষণা করা হয় কবে

১৯৮০ সালে ২৬ শে মার্চ কে স্বাধীনতা দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

আশা করি আজকের পোস্ট এর সাহায্যে আপনারা 26 শে মার্চ কি দিবস জানতে পেরেছেন। আমরা আরও উল্লেখ করেছি 26 শে মার্চ কেন পালন করা হয়। অন্যদিকে 26 শে মার্চের সঠিক ইতিহাস আমরা আলোচনা করেছি। তাই সবার সাথে শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিন আজকে কেন স্বাধীনতা দিবস।

Read More

স্বাধীনতা দিবসের উক্তি,

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা বার্তা

স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস

Tech Tips

টিপস নেট বিডি সকল ধরনের প্রয়োজনীয় বিষয় নিয়ে কাজ করে। বিভিন্ন ধরনের শিক্ষামূলক, কৃষি, প্রযুক্তি, বিনোদনমূলক, কুইজ প্রতিযোগিতা, পরীক্ষার রেজাল্ট। সকল ধরনের তথ্য দিয়ে আমরা সাহায্য করে থাকি। নতুন তথ্য পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button